শুক্রবার, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৯:৫৭ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট কয়রা উপজেলা শাখার ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ‘ জন্মদিন পালন তথ্য প্রযুক্তির যুগে জনগণের তথ্য অধিকার নিশ্চিত হোক’ চট্টগ্রাম লোহাগাড়ায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান, বিভিন্ন অপরাধের ৫ মামলায় ১৬’০০০টাকা জরিমানা সাংবাদিকের বিরুদ্ধে হয়রানিমুলক মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবীতে লোহাগাড়ায় কর্মরত সাংবাদিকদের মানববন্ধন পাইওনিয়ার মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ে দেশরত্ন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৬ তম জন্মদিন পালন নগরকান্দায় প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তার কান্ড – সরকারি বই ঝোপঝাড়ে ঝিনাইদহ কালীগঞ্জে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৬তম জন্মদিন পালন ভৈরবে মুর্শিদ মুজিব উচ্চ বিদ্যালয়ে শেখ হাসিনার ৭৬তম জন্মদিন উদযাপন গাইবান্ধার বামনডাঙ্গা আব্দুল হক ডিগ্রি কলেজের অনিযমের অভিযোগ,নিয়োগ বানিজ্যে মেতে উঠেছে অধ্যক্ষ মাদারীপুরে জেলা পর্যায়ে ২০২২ জাতীয় শ্রেষ্ঠ সহকারী শিক্ষকা শিক্ষা পদক পেলেন মোছাঃ রাকিবা সুলতানা
দৈনিক দেশ প্রতিদিন

দৈনিক দেশ প্রতিদিন

 

বিজয়নগরে প্রয়োজনীয় সংস্কারের অভাবে হরষপুর-মির্জাপুর সড়কের বেহাল দশা

  • প্রকাশের সময় : শুক্রবার, ২ সেপ্টেম্বর, ২০২২
  • ১৫৫ বার দেখেছে

বিজয়নগর প্রতিনিধিঃব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগরে হরষপুর-মির্জাপুর সড়কটি দীর্ঘদিন ধরে প্রয়োজনীয় সংস্কার না করায় সড়কটি এখন বেহাল দশা। এটি বিজয়নগর উপজেলার একটি জনগুরুত্বপূর্ন সড়ক। সংস্কারের অভাবে সড়কটি এখন ওই এলাকার মানুষের কাছে মরণফাঁদে পরিনত হয়েছে। প্রতিদিনই ওই রাস্তায় ছোট-খাট দুর্ঘটনা ঘটনাসহ এই রাস্তায় চলাচলরত মানুষ দুর্ভোগ পোহায় পদে পদে। দুর্ঘটনায় পতিত হয়ে যানবাহনের যন্ত্রাংশ নষ্ট হচ্ছে। আহত হচ্ছেন মানুষ। বর্তমানে ঝুঁকি নিয়ে যানবাহন ও মানুষজন চলাচল করছে। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে প্রায় ৬ কিলোমিটার লম্বা এই রাস্তাটি সংস্কারের দরপত্র (টেন্ডার) আহবান করা হয়। ৪ কোটি টাকায় সংস্কার কাজটি পায় চট্টগ্রামের ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মেসার্স রিপন ট্রেডার্স ও ব্রাহ্মণবাড়িয়ার মেসার্স পিন্টু কন্সট্রাকশন (জয়েন্ট বেঞ্চার)। কাজটি করাচ্ছেন মেসার্স পিন্টু কন্সট্রাকশনের মালিক মোঃ আতাউর রহমান পিন্টু।
চলতি বছরের মার্চ মাসে কাজটি করার ওয়ার্ক অর্ডার (অনুমতিপত্র) পাওয়ার পর গত মাসে ৬ কিলোমিটার রাস্তার মাত্র আড়াই কিলোমিটার কাজ করেন ঠিকাদার। গত দুই মাস ধরে সংস্কার কাজ বন্ধ রয়েছে। ইতিমধ্যেই রাস্তাটি খনাভন্দে ভরে গেছে। রাস্তার মাঝ খানে বড় বড় গর্ত সৃষ্টি হওয়ায় যানবাহনের চাকা ওইসব গর্তে আটকে যায়। সামান্য বৃষ্টি হলে কাদায় সয়লাব হয়ে যায় রাস্তা। বৃষ্টির দিনে প্রায়ই রাস্তার মধ্যে চলাচলরত ইজিবাইক উল্টে গিয়ে লোকজন আহত হয়। প্রতিদিন এই রাস্তা দিয়ে বিজয়নগর উপজেলার পাহাড়পুর ও হরষপুরপুর ইউনিয়নের লোকজনসহ হবিগঞ্জ জেলার মাধবপুর উপজেলার হাজার হাজার মানুষ ভোগান্তি নিয়ে চলাচল করে। বর্তমানে সড়কটির পাইকপাড়া, বাগদিয়া, পাঁচগাও, সোনামুড়া এলাকার অবস্থা খুবই নাজুক। ওইসব এলাকায় রাস্তার মধ্যে বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হওয়ায় প্রতিদিনই ওইসব গর্তে পড়ে যানবাহনের গুরুত্বপূর্ণ যন্ত্রাংশের ক্ষতি হচ্ছে। পাশাপাশি যাত্রীরা পড়েন চরম ভোগান্তিতে। সামান্য বৃষ্টিতেই সড়কটি কাদায় সয়লাব হয়ে যায়। এই সড়কের সিএনজিচালিত অটোরিকসা চালক মোস্তাক আহমেদ বলেন, সড়কটির অবস্থা খুবই খারাপ। প্রতিদিনই সড়কে ছোটখাট দুর্ঘটনা ঘটে। ভাঙ্গাচোরা জায়গায় যাত্রী নামিয়ে ধাক্কা দিয়ে অটোরিকসা পার করতে হয়। এতে গাড়ির যন্ত্রাংশ নষ্ট হয়। দুর্ঘটনার কবলে পড়ে যাত্রীরা কমবেশী আহত হয়। তিনি দ্রুত সড়কটির সংস্কার কাজ শেষ করে যাত্রীদের ভোগান্তি লাঘব করার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে দাবি জানান। এই সড়ক দিয়ে চলাচলকারী উপজেলার হরষপুর ইউনিয়নের নিদারাবাদ গ্রামের ইশতিয়াক আহমেদ বলেন, এই সড়কের অবস্থা খুব খারাপ। সরকার রাস্তাটি সংস্কারের জন্য টেন্ডার দিলেও গত দুই মাস ধরে ঠিকাদার কাজ বন্ধ করে দিয়েছেন। তিনি বলেন, ভাঙ্গাচুরা সড়ক দিয়ে চলাচল করতে আমাদের খুবই কষ্ট হয়। সড়কের মেকাডম উঠে মাঝখানে বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। সামান্য বৃষ্টি হলেই ওইসব গর্তে পানি জমে যায়। তিনি সড়কটি দ্রুত সংস্কার কাজ শেষ করার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে দাবি জানান। এ ব্যাপারে উপজেলার হরষপুর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মোঃ শাহজাহান বলেন, সড়কটির অবস্থা অবণর্নীয়। বর্তমানে যান চলাচলের সম্পূর্ন অনুপযোগী। তিনি সড়কটির দ্রুত সংস্কার কাজ বাস্তবায়ন করে জনগনের ভোগান্তি লাঘবের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে দাবি জানান। এ ব্যাপারে হরষপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সারোয়ার রহমান ভূইয়া সড়কটির ভগ্নদশার কথা স্বীকার করে বলেন, এই সড়কে প্রতিদিনই ছোটখাট দূর্ঘটনা ঘটছে। এতে জনগণ খুবই কষ্ট করছে। তিনি বলেন, উপজেলা পরিষদের মাসিক সমন্বয় সভায় বেশ কয়েকবার সড়কটির সংস্কার নিয়ে কথা বলেছি কিন্তু কোন লাভ হয়নি। এ ব্যাপারে বিজয়নগর উপজেলা প্রকৌশলী মোঃ আনিসুর রহমান ভূইয়া দেশ প্রতিদিনকে বলেন, ফেব্রুয়ারি মাসে সড়কটি সংস্কারের জন্য টেন্ডার হয়। চট্টগ্রামের একটি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের লাইসেন্স দিয়ে কাজটি পায় ঠিকাদার আতাউর রহমান পিন্টু। তিনি বলেন প্রায় ৬ কিলোমিটার সড়কটির সংস্কারের জন্য ব্যয় নির্ধারণ করা হয়েছে ৪ কোটি টাকা। তিনি বলেন, গত ৬ মাসে সড়কটির মাত্র আড়াই কিলোমটির কাজ হয়েছে। এখনো সড়কটির আড়াই কিলোমিটার মেকাডমসহ কার্পেটিং এবং ২৭০ মিটার সিসি ঢালাইয়ের কাজ বাকি রয়েছে। তিনি বলেন, গত ২ মাস ধরে ঠিকাদার সংস্কার কাজ বন্ধ করে দিয়েছেন। আগামী অক্টোবর মাসের মধ্যে এর সংস্কার কাজ শেষ করার কথা ছিলো। কিন্তু ঠিকাদার নির্ধারিত সময়ের মধ্যে কাজটি শেষ করতে পারবেন বলে মনে হয়না।
তিনি বলেন, জনগনের ভোগান্তির কথা চিন্তা করে ঠিকাদারকে দ্রুত সংস্কার কাজ শুরু করার জন্য কয়েকবার বলেছি। তিনি অর্থনৈতিক সংকটের কথা বলে কাজ নিয়ে সময়ক্ষেপন করছেন। এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার এ.এইচ. ইরফান উদ্দিন আহম্মেদ সড়কের বেহাল দশার কথা স্বীকার করে দেশ প্রতিদিনকে বলেন, গত দুই মাস ধরে সড়কের সংস্কার কাজ বন্ধ রয়েছে। ঠিকাদারকে দ্রুত সংস্কার কাজ শুরু করার কথা বলেছি। এলজিইডির নির্বাহী প্রকৌশলীর সাথেও সড়কটির সংস্কার কাজ নিয়ে কয়েক দফা কথা হয়েছে। এ ব্যাপারে ঠিকাদার আতাউর রহমান পিন্টু সড়কের বেহাল অবস্থার কথা স্বীকার করে বলেন, তিনি বলেন, আমি মার্চ মাসে কাজের কার্যাদেশ পেয়ে কাজটি শুরু করেছি। ইতিমধ্যেই ৬ কিলোমিটার রাস্তার প্রায় সাড়ে তিন কিলোমিটার কাজ করেছি। কার্পেটিং করার মেশিনের অভাবে বর্তমানে সংস্কার কাজ বন্ধ আছে। আশা করি দ্রুততম সময়ের মধ্যে কাজটি পুনরায় শুরু করে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে কাজটি শেষ করতে পারবো।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই রকম আরো সংবাদ
দৈনিক দেশ টিভি

দেশ প্রতিদিন টিভি

নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি

দৈনিক দেশ প্রতিদিন

দৈনিক দেশ প্রতিদিন

দৈনিক দেশ প্রতিদিন

দৈনিক দেশ প্রতিদিন

দৈনিক দেশ প্রতিদিন

দৈনিক দেশ প্রতিদিন

দৈনিক দেশ প্রতিদিন

দৈনিক দেশ প্রতিদিন